উন্নয়নকে টেকসই করার লক্ষ্যে ডেল্টা প্ল্যান-২১০০: জাহিদ ফারুক

নিজস্ব প্রতিবেদক: পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি বলেছেন; বাংলাদেশের উন্নয়নকে টেকসই করার লক্ষ্যে ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ প্রণয়ন করা হয়েছে। এ পরিকল্পনা লক্ষ্য হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে বাংলাদেশে যে বিরূপ প্রভাব পড়েছে তা মোকাবিলা করে দেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশে রূপান্তর করা।জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য দেশ গড়তে কাজ করছে বর্তমান সরকার। জলবায়ু পরিবর্তনের সর্বাধিক ঝুঁকিতে থাকা পৃথিবীর বৃহত্তম ব-দ্বীপ বাংলাদেশের পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনায় বহুমাত্রিক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে নদীভাঙ্গন হতে রক্ষায় নিবিরভাবে কাজ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

 

বুধবার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের(বুয়েট) কাউন্সিল ভবনে “An Investigation on the Causes of Embankment Failure and Recommendations for Sustainable Solutions (CEF Project)ÕÕ শীর্ষক কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন; নদীতীর/বাঁধ ভাঙ্গন বাংলাদেশে অতি পরিচিত বিষয়।প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট কারনে এসব বাঁধ ভাঙ্গছে। এছাড়াও এসব বাঁধ যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণের অভাব, উপযুক্ত গুণাগুণ সম্পন্ন মাটির অপর্যাপ্ততা,সঠিক ভাবে খনন না করা,ইঁদুরের গর্ত,নদী ভরাট হয়ে পানি ধারণ ক্ষমতা কমে গিয়ে বর্ষাকালে বাঁধ ওভার টপিং হচ্ছে, জায়গার অভাবে যথাযথ স্লোপ অনুসরণ করতে না পারার কারনে বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে। বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য মানবতা ও বাস্তুসংস্থানকে টিকিয়ে রাখার জন্য নদীতীর রক্ষা বাঁধ ও সংরক্ষণকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন;নদীতীর সংরক্ষণ কাজের নিয়মিত পর্যবেক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণ,বিভিন্ন উপকারভোগীদের মতামত ডিজাইনে প্রতিফলন, বালু উত্তোলন এর যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ,কোথায় এবং কি পরিমাণে ড্রেজিং করতে হবে সেটা হাইড্রো-মরফোলজিকাল স্টাডির মাধ্যমে নির্ধারণ করতে হবে। প্রচলিত নদী তীর প্রতিরক্ষা কাজের পাশাপাশি ভবিষ্যতে প্রাকৃতিক উপায় সমাধানই হ্রাস করবে ভাঙ্গন। এছাড়া বাঁধ রক্ষার দায়িত্ব কেবল রাষ্ট্রের একার নয়। ওই এলাকার মানুষেরও বাঁধের প্রতি একটি আলাদা দায়বদ্ধতা রয়েছে। জনসাধারণ, রাষ্ট্র ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যক্তি ও সংস্থার সম্মিলিত প্রয়াসই পারে বাংলাদেশের নদীতীর ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধগুলোর সর্বোচ্চ কার্যকারিতা নিশ্চিত করতে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় এর সচিব,নাজমুল আহসান,মোঃ নূরুল ইসলাম সরকার, মহাপরিচালক,পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং প্রফেসর ড.আব্দুল জব্বার খাঁন,প্রো- ভাইস চ্যান্সেলর,বুয়েট।

এই বিভাগের আরো খবর