জাতীয়

৫২ হাজার ৬১২ কোটি টাকার ৩৭টি প্রকল্পের অনুমোদন

সময়ের চিত্র ডেস্ক: জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) আজ প্রায় ৫২ হাজার ৬১২ কোটি টাকা ব্যয় সংবলিত ৩৭টি প্রকল্প অনুমোদন করেছে। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ২১ হাজার ৫৪৬ কোটি ৭৭ লাখ টাকা, বৈদেশিক অর্থায়ন ২৯ হাজার ৫৬৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ১ হাজার ৪৯৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকা।

প্রধানমন্ত্রী এবং একনেক-এর চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ শেরে বাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক-এর সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

অনুমোদিত প্রকল্পসমূহ হলো: পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৩টি প্রকল্প যথাক্রমে “পাবনা জেলার ইছামতি নদী পুনরুজ্জীবিতকরণ”প্রকল্প, “যমুনা নদী টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্প-১: নদীতীর সংরক্ষণ ও নদী শাসন (কম্পোনেন্ট-১)” প্রকল্প এবং “পদ্মা নদীর ভাঙন হতে কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলাধীন তালবাড়িয়া এবং কুমারখালী উপজেলাধীন শিলাইদহ ইউনিয়নের কোমরকান্দি এলাকা রক্ষা” প্রকল্প; কৃষি মন্ত্রণালয়ের ২টি প্রকল্প যথাক্রমে “পানি সাশ্রয়ী সেচ প্রযুক্তি এবং পলিশেড নির্মাণের মাধ্যমে নিরাপদ সবজি, ফল ও ফুল উৎপাদন” প্রকল্প এবং “রংপুর বিভাগ কৃষি ও গ্রামীণ উন্নয়ন” প্রকল্প; স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ৭টি প্রকল্প যথাক্রমে “লোকাল গভর্নমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক)” প্রকল্প, “সিলেট বিভাগ গ্রামীণ অ্যাকসেস সড়ক উন্নয়ন” প্রকল্প, “নওগাঁ জেলার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন” প্রকল্প, “মাগুরা জেলার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন” প্রকল্প, “জয়পুরহাট জেলার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন” প্রকল্প, “ইনার সার্কুলার রিং রোডের বেড়িবাধ রায়ের বাজার স্লুইস গেইট থেকে লোহার ব্রিজ পর্যন্ত রাস্তার উন্নয়ন” প্রকল্প এবং “আমিন বাজার ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণ ও আধুনিকীকরণ” প্রকল্প; শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ৩টি প্রকল্প যথাক্রমে “দেশের ৬৫৩টি মাদ্রাসায় মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন” প্রকল্প, “ন্যাশনাল একাডেমি ফর অটিজম এন্ড নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিজএবিলিটিজ-NAAND” প্রকল্প এবং “Learning Acceleration in Secondary Education (LAISE)” প্রকল্প; বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশন সচিবালয়ের “বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশন সচিবালয়ের ৭টি আঞ্চলিক কার্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ” প্রকল্প; বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের “রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে অফসাইট পানি সরবরাহের সুবিধাদি স্থাপন” প্রকল্প; শিল্প মন্ত্রণালয়ের “১০ জেলায় বিএসটিআই’র আঞ্চলিক কার্যালয় স্থাপন” প্রকল্প; বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৫টি প্রকল্প যথাক্রমে “Installation of Smart Prepaid Gas Meters, SCADA & GIS at PGCL Franchise Area” প্রকল্প, “Gas Sector Efficiency Improvement & Carbon Abatement Project [Installation of Smart Prepaid Gas Meter for TGTDCL]” প্রকল্প, “Smart Metering Energy Efficiency Improvement Project [Installation of Prepaid Gas Meter for TGTDCL]” প্রকল্প; “ইনস্টলেশন অভ্ সিঙ্গেল পয়েন্ট মুরিং (এসপিএম) উইথ ডাবল পাইপ লাইন” প্রকল্প এবং “বগুড়া-রংপুর-সৈয়দপুর গ্যাস সঞ্চালন

পাইপলাইন নির্মাণ” প্রকল্প; সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয়ের ৫টি প্রকল্প যথাক্রমে “মতলব উত্তর-গজারিয়া সড়কে মেঘনা-ধনাগোদা নদীর উপর সেতু নির্মাণ” প্রকল্প, “রহমতপুর-বাবুগঞ্জ-মুলাদি-হিজলা মহাসড়ক (জেড-৮০৩৪)-এর ৮ম কিলোমিটারে আড়িয়াল খাঁ নদীর উপরে মীরগঞ্জ সেতু নির্মাণ” প্রকল্প, “চট্টগ্রাম-কক্সবাজার হাইওয়ে ইম্প্রুভমেন্ট প্রজেক্ট (১)” প্রকল্প, “আনোয়ারা উপজেলা সংযোগ সড়কসহ কর্ণফুলি টানেল সংযোগ সড়ককে ৪-লেনে উন্নীতকরণ (শিকলবাহা-আনোয়ারা সড়ক)” প্রকল্প এবং “চাতুরী (চৌমুহনী)-সিইউএফএল-কর্ণফুলী ড্রাইডক (মেরিন একাডেমী)-ফকিরনিরহাট (এন-১২১) জাতীয় মহাসড়ক যথাযথমান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ” প্রকল্প; নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের “যমুনা নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্প-১ (নেভিগেশনাল চ্যানেল উন্নয়ন)” প্রকল্প; স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ২টি প্রকল্প যথাক্রমে “বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড-এর সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিস্থাপক জাহাজ সংগ্রহ” প্রকল্প এবং “ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের অ্যাম্বুলেন্স সেবা সম্প্রসারণ (ফেইজ-২)” প্রকল্প; গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের “অফিসার্স ক্লাব ঢাকা’র ক্যাম্পাসে বহুতল ভবন নির্মাণ” প্রকল্প; রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ৩টি প্রকল্প যথাক্রমে “খুলনা হতে মোংলা পোর্ট পর্যন্ত রেল লাইন নির্মাণ” প্রকল্প, “চট্টগ্রাম-দোহাজারী মিটারগেজ রেলপথকে ডুয়েলগেজ রেলপথে রূপান্তর” প্রকল্প এবং “জয়দেবপুর- ঈশ্বরদী সেকশনের ডুয়েল গেজ সিঙ্গেল লাইন নির্মাণ (প্রকৌশল সেবা) সংক্রান্ত কারিগরি সহায়তা” প্রকল্প, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ২টি প্রকল্প যথাক্রমে “স্ট্রেংদেনিং রেগুলেটরি সিস্টেম ফর ভ্যাক্সিন, ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড থেরাপিউটিক্স” প্রকল্প এবং “এসেনসিয়াল বায়োটেক এন্ড রিসার্চ সেন্টার, গোপালগঞ্জ স্থাপন” প্রকল্প;

পরিকল্পনা কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান; কৃষিমন্ত্রী মোঃ আব্দুর রাজ্জাক; তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ; স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম; শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দিপু মনি; শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন; বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি; মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম; পরিবেশমন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এবং ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীগণ সভার কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন।

সভায় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, এসডিজির মুখ্য সমন্বয়ক, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সমূহের সিনিয়র সচিব ও সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button