অর্থনীতি

হতাশায় বিনিয়োগকারীরা খরার দশায় পুঁজিবাজার

অর্থনীতির জন্য আগামী ৫ বছর গোল্ডেন ফাইভ ইয়ার্স-বিএসইসি

বিশেষ সংবাদদাতা:

রাজনৈতিক অনিশ্চয়তার ছোঁয়া লেগেছে দেশের পুঁজিবাজারে। যার কারণে বাজারেও একটা অস্থিরতা বিরাজ করছে। বেশির ভাগ শেয়ারের দর অপরিবর্তিত থাকার কারণে বিক্রি করতে পারছে না। আটকে আছে বিনিয়োগকৃত অর্থ। ফলে হতাশায় ভুগছেন বিনিয়োগকারীরা।

লেনদেনে খরা ধরেছে। ৪০০ কোটি টাকার নিচে নেমেছে ডিএসইতে। তবে বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা আগামী পাঁচ বছরে সুবাদের স্বপ্ন দেখাচ্ছে বিনিয়োগকারীদের। আমি নিয়ন্ত্রক সংস্থার চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক জগৎকে অন্যরকম ভাবে দেখতে পাচ্ছি। আমাদের অর্থনীতির জন্য আগামী ৫ বছর হবে গোল্ডেন ফাইভ ইয়ার্স অব ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট বলে মন্তব্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস ফ্যাকাল্টি অনুষদে আয়োজিত বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ উপলক্ষে গতকাল ‘ক্যাপিটাল মার্কেট ফর সাসটেইনেবল ফাইন্যান্স’ শীর্ষক সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, করোনা আর যুদ্ধবিগ্রহ মাঝে মাঝে আমাদের স্লো করে দিয়েছে। এখন নির্বাচনের জন্য যা হয় সাধারণত একটু টেনশন থাকে।

তার পরেও দেখতে পাচ্ছি একটা সুন্দর অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ। বিজনেস ফ্যাকাল্টির ছাত্রছাত্রীদের জন্য চাকরি, প্রমোটর হওয়া, ব্যবসা-বাণিজ্য করার একটা বিরাট সুযোগ আসছে।

এ দিকে, ডিএসইর দেয়া বাজার তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে গতকাল সপ্তাহের শেষ দিনে লেনদেনের প্রথম আড়াই ঘণ্টার মধ্যে বিক্রেতা উধাও হয়ে গেছে শ্যামপুর সুগার মিলস লিমিটেডের শেয়ারে। এতে কোম্পানিটির শেয়ার হল্টেড হয়ে মূল্য স্পর্শ করছে সার্কিট ব্রেকারে বলে ডিএসই তথ্য প্রকাশ করেছে। ডিএসইর মতে, দুপুর ১২টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত শ্যামপুর সুগারের স্ক্রিনে ৪৯ হাজার ১৫৩টি শেয়ার কেনার আবেদন ছিল। কিন্তু বিক্রেতার কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। ফলে ওই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ ১৫৫ টাকা ৪০ পয়সা দরে লেনদেন হয়। গতকাল শেয়ারটির সমাপনী দর ছিল ১৪১ টাকা ৩০ পয়সা।

আর ডিএসইতে ৬ কোটি ৯০ লাখ ১০ হাজার ৩৬৮টি শেয়ার ও ইউনিট গতকাল মোট ৩৮৯ কোটি ৬৭ লাখ ৯৬ হাজার ৪৪৮.২০ টাকা বাজারমূল্যে হাতবদল হয়েছে। আগের দিন থেকে ৬১ কোটি ৩০ লাখ টাকা কম লেনদেন হয়েছে। বুধবার ডিএসইতে ৪৫০ কোটি ৯৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। ডিএসই প্রধান বা ডিএসইএক্স সূচক এক পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ২৬১ পয়েন্টে রয়েছে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক দশমিক ২৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩৫৫ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৩৭ পয়েন্টে রয়েছে। ডিএসইতে ৩১০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬২টির, কমেছে ৮১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৬৭টির।

ব্লক মার্কেটে প্রায় ৪০ কোটি টাকা : ডিএসইর ব্লক মার্কেটে গতকাল ব্লক মার্কেটে মোট ৫৩টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মোট ১ কোটি ৩৩ লাখ ১৬ হাজার ৭৮৩টি শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যার বাজার মূল্য ৩৯ কোটি ৯৬ লাখ ২৪ হাজার টাকা। আর ব্লক মার্কেটে সবচেয়ে বেশি টাকার লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের। কোম্পানিটি ৭ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। সী পার্ল বীচ ৩ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার এবং এমারেল্ড অয়েল ৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।
ব্লক মার্কেটে লেনদেন করা অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে- বেক্সিমকো ১ কোটি ২৪ লাখ টাকার, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল ১ কোটি ৫২ লাখ টাকার, ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্স ২ কোটি ৮২ লাখ টাকার, ফাইন ফুডস ১ কোটি ১৫ লাখ টাকার, লাফার্জ হোলসিম ২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার, আরডি ফুড ১ কোটি ৪৩ লাখ টাকার, সাইফ পাওয়ারটেক ১ কোটি ১৩ লাখ টাকার ও স্কয়ার ফার্মা ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে।

পরিশোধিত মূলধন বাড়াবে ওয়াইম্যাক্স : পরিশোধিত মূলধন বাড়াবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ওয়াইম্যাক্স ইলেকট্রোডস লিমিটেড। কোম্পানির পর্ষদের পর পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনও (বিএসইসি) মূলধন বাড়ানোর বিষয়ে সম্মতি দিয়েছে বলে প্রকাশ করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। ডিএসইর তথ্য মতে, পর্ষদ সভার সিদ্ধান্ত অনুসারে কোম্পানিটি ৬৭ কোটি ৮ লাখ ৪৭ হাজার ৮১০ টাকা থেকে পরিশোধিত মূলধন ৭৩ কোটি ৮ লাখ ৪৭ হাজার ৮১০ টাকায় উন্নীত করবে। কোম্পানিটি ওয়াইম্যাক্স জো হোল্ডিংসের ৫৭ লাখ ৬০ হাজার শেয়ার, ওফেনহ্যাফেন হোল্ডিংসের ১ লাখ ২০ হাজার এবং এনজে হোল্ডিংস লিমিটেডের ১ লাখ ২০ হাজার শেয়ার ইস্যু করে মূলধন বাড়াবে।

 

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button