Home অর্থ ও বানিজ্য সরকারি সংস্থাগুলোর লোকসান বেড়েছে

সরকারি সংস্থাগুলোর লোকসান বেড়েছে

25
0
SHARE

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

সরকারি ৪৯টি সংস্থা চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে মাস পর্যন্ত মোট ২ হাজার ৮৬৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকা নিট মুনাফা করেছে। যা গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের চেয়ে ১২ হাজার ২৯২ কোটি ১৪ লাখ টাকা কম। গত অর্থবছরে সরকারি সংস্থাগুলো নিট মুনাফা করেছিল ১৫ হাজার ১৫৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। সদ্য প্রকাশিত সরকারি হিসাব থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, করোনা পরিস্থিতির কারণে সরকারি সংস্থাগুলো সঠিকভাবে পরিচালনা করা সম্ভব হয়নি। চলতি অর্থবছরের পরিপূর্ণ হিসাব হলে সরকারি সংস্থাগুলোর লোকসান কিছুটা কমে আসবে।

সরকারি সংস্থাগুলোর নিট মুনাফা ও লোকসানের বিবরণ থেকে দেখা যায়, শিল্প খাতের ছয়টি প্রতিষ্ঠান ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত লোকসান দিয়েছে ১ হাজার ৬৯৮ কোটি ৬ লাখ টাকা। চলতি অর্থবছরে শিল্প খাতের প্রতিষ্ঠানগুলোর লোকসান কিছুটা কমেছে। এ খাতের একমাত্র বিএফআইডিসি মে পর্যন্ত ৮ কোটি ৫৯ লাখ টাকা লাভ করেছে। যদিও গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরে সংস্থাটি ১৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা লাভ করেছিল।

ইউটিলিটি খাতের ছয়টি প্রতিষ্ঠান ২০২০-২০২১ অর্থবছরে যেখানে  ১ হাজার ৯৫ কোটি ১০ লাখ টাকা লাভ করেছিল, সেখানে ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত ১ হাজার ১১৭ কোটি ২৯ লাখ টাকা লোকসান গুনেছে। সংস্থাটির অন্যান্য প্রতিষ্ঠান কমবেশি লাভ করলেও বিপিডিবির ১ হাজার ৮৯৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা লোকসান হওয়ায় ইউলিটি খাত লোকসানের মুখে পড়েছে।

পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে বিআরটিসি’র লোকসান কিছুটা বেড়েছে। বিআইডব্লিউটিসিও লোকসান দিয়েছে। এ খাতের আটটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বাকি ছয়টি প্রতিষ্ঠান আগের অর্থবছরের চেয়ে সামান্য কম হলেও লাভের মুখ দেখেছে। গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের এই ৮ সংস্থা লাভ করেছিল ৪ হাজার ৫০১ কোটি ২২ লাখ টাকা। চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত লাভ করেছে ৩ হাজার ৯৯৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। অর্থৎ গত অর্থবছরের চেয়ে ৫০৭ কোটি ৭৭লাখ টাকা কম লাভ হয়েছে।

বাণিজ্যিক খাতের তিনটি প্রতিষ্ঠান লাভ করলেও তা গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের চেয়ে লাভের হার কমেছে। গত অর্থবছরে যেখানে এই তিন সংস্থা লাভ করেছিল ৯ হাজার ২৫৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, সেখানে চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত তা কমে দাঁড়িয়েছে ১০৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকায়। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের চেয়ে মে মাস পর্যন্ত এ তিন সংস্থার লাভ কমেছে ৯ হাজার ১৫২ কোটি ১৪ লাখ টাকা। গত অর্থবছর বিপিসি লাভ করেছিল ৯ হাজার ৫৫৯ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। চলতি অর্থবছরের মে পর্যন্ত লাখ করেছে ১ হাজার ২৬৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ ৮ হাজার ২৯৫ কোটি ৬৭ লাখ টকা কম লাভ হয়েছে। মূলত ভর্তুকি দামে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভিন্ন পণ্য বিক্রির কারণে টিসিবির লোকসান বেড়েছে। গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরে সংস্থাটির লোকসান হয়েছিল ৩০২ কোটি ৬৫ লাখ টাকা, সেখানে চলতি অর্থবছরের মে পর্যন্ত লোকসান হয়েছে ১ হাজার ১৫৮ কোটি ০৯ লাখ টাকা।

কৃষি ও মৎস্য খাত ভালো করেছে। নানা ধরনের বাধার পরও গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের চেয়ে চলতি অর্থবছরের মে পর্যন্ত ৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা লাভ করেছে। এর মধ্যে বিএডিসি গত অর্থবছরে লাভ করেছিল ১৪ কোটি ৫৭ লাখ টাকা। বিএফডিসি (মৎস্য) লাভ করেছিল ৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ এই দুই সংস্থা লাভ করেছিল ১৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। আর চলতি ২০২২-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত এই দুই প্রতিষ্ঠান লাভ করেছে ২৮ কোটি৫৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে বিএডিসি ১৫ কোটি ২ লাখ টাকা আর বিএফডিসি (মৎস্য) লাভ করেছে ১৩ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

নির্মাণ খাতের ছয়টি প্রতিষ্ঠান ২০২০-২০২১ অর্থবছরে লাভ করেছিল ২৭৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত সাময়িক হিসাবে লাভ করেছে ৩০৫ কোটি ২৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ গত অর্থবছরের চেয়ে চলতি বছরের সাময়িক হিসাবে প্রতিষ্ঠান ৬টি ৩১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা বেশি লাভ করেছে।

সার্ভিস ও অন্যান্য খাতের ১৮টি সংস্থার মধ্যে বিএফআইডিসি (ফিল্ম), বিআইডব্লিউটিএ ও বিইআরসি ছাড়া বাকি ১৫টি সংস্থার আয় কিছুটা কমেছে। গত অর্থবছরে এই ১৮টি সংস্থা আয় করেছিল ১ হাজার ৯৯০ কোটি ৫১ লাখ টাকা। চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মে পর্যন্ত সাময়িক হিসাবে লাভ করেছে ১ হাজার ২৪৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

image_print