Home প্রধান খবর বিভিন্ন জেলায় পৌঁছে দিতে রুটসহ স্মারকলিপি জবি শিক্ষার্থীদের

বিভিন্ন জেলায় পৌঁছে দিতে রুটসহ স্মারকলিপি জবি শিক্ষার্থীদের

44
0
SHARE

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।।

ঈদের আগে ঢাকায় আটকে থাকা শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক বাসে করে বিভিন্ন জেলায় পৌঁছে দিতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে পরিবহন প্রশাসককে রুট সম্বলিত স্মারকলিপি দিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক ও প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বরাবর লিখিত স্মারকলিপি জমা দেয় শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এ স্মারকলিপি জমা দেয় কনিক স্বপ্নীল, সাজ্জাদ হােসাইন ইহসান এবং সাইদুল ইসলাম সাঈদ।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, আমরা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ। করােনা মহামারী তে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিভিন্ন বিভাগীয় শহর বা জেলাগুলােতে যাওয়ার জন্য ইতিমধ্যে ৭টি বিভাগে যাবার সময়সূচী প্রদান করা হয়েছে। আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের বাড়ি যাওয়ার জন্য বাসের বন্দোবস্ত করেছে। এই ঈদে শিক্ষার্থীদের সুন্দর ভ্রমণ, নিরাপত্তা ও নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছানাের জন্য নির্ধারিত ৭ টি বিভাগের (ঢাকাসহ ৮টি) প্রায় ৫৭-৫৮টি জেলায় নির্বিঘ্নে পৌছানাের জন্য ১৫ টি রুটসহ বিস্তারিত স্মারকলিপিতে সংযুক্ত করা হল।

এতে আরো বলা হয়েছে, শিক্ষার্থীদের সার্বিক পরিস্থিতি ও নিরাপত্তা বিবেচনা করে উপরােল্লিখিত বিষয়ে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করে বাধিত করিবেন।

রুট ম্যাপে শিক্ষার্থীরা জানা, রংপুর বিভাগের দুইটি রুটে বাস দেয়া যেতে পারে। প্রথম রুটটি ঢাকা-টাঙ্গাইল-বগুড়া-গাইবান্ধা-রংপুর-সৈয়দপুর, দশমাইল (দিনাজপুর)-ঠাকুরগাঁও বা পঞ্চগড় পর্যন্ত। দ্বিতীয় রুটটি ঢাকা-টাঙ্গাইল-বগুড়া-গাইবান্ধা-রংপুর-লালমনিরহাট-কুড়িগ্রাম পর্যন্ত।

সিলেট বিভাগের প্রথম রুটে ঢাকা-রুপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)-ইটাখােলা (নরসিংদী) – বাজিতপুর (কিশােরগঞ্জ) – ব্রাহ্মনবাড়িয়া – হবিগঞ্জ – শ্রীমঙ্গল – মৌলভীবাজার। দ্বিতীয় রুটটি ঢাকা – নারায়ণগঞ্জ – নরসিংদী – ভৈরব (কিশােরগঞ্জ) ক ব্রাহ্মনবাড়িয়া – হবিগঞ্জ – সুনামগঞ্জ – সিলেট পর্যন্ত।

রাজশাহী বিভাগে প্রথম রুটটি ঢাকা – টাঙ্গাইল – সিরাজগঞ্জ – বগুড়া জয়পুরহাট – নওগাঁ পর্যন্ত।
দ্বিতীয় রুটটি ঢাকা – টাঙ্গাইল – সিরাজগঞ্জ – নাটোর – রাজশাহী – চাপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত। এখানে উল্লেখ থাকে যে পাবনা এবং কুষ্টিয়া জেলা খুলনা বিভাগের রুটে দেয়া যেতে পারে।

খুলনা বিভাগের প্রথম রুটে ঢাকা – টাঙ্গাইল – সিরাজগঞ্জ – পাবনা – কুষ্টিয়া – চুয়াডাঙ্গা – মেহেরপুর। দ্বিতীয় রুটে ঢাকা – মাওয়া – ভাঙ্গা (ফরিদপুর) – মকসুদপুর (গােপালগঞ্জ) – ভাটিয়াপাড়া (নড়াইল যেতে ভাড়া ৩০ টাকা) – মােল্লারহাট – ফকিরহাট (বাগেরহাট)- খুলনা – সাতক্ষীরা। তৃতীয় রুটে ঢাকা – মানিকগঞ্জ – পাটুয়ারীঘাট – রাজবাড়ী – ফরিদপুর – মাগুরা – ঝিনাইদহ – যশাের পর্যন্ত।

বরিশাল বিভাগে প্রথম রুটে ঢাকা – মাওয়া ক শরিয়তপুর – বরিশাল – পটুয়াখালী – বরগুনা
দ্বিতীয় রুটে ঢাকা – ভাঙ্গা (ফরিদপুর) – মাদারীপুর – বরিশাল – ঝালকাঠি – পিরােজপুর। ভােলায় বাসে যাওয়ার রুট নেই, বরিশাল থেকে নদী পাড় হতে হবে।

চট্টগ্রাম বিভাগে প্রথম রুটে ঢাকা – কুমিল্লা (লাকসাম) – চৌমুহনী (নােয়াখালী) – লক্ষীপুর – চাঁদপুর পর্যন্ত। দ্বিতীয় রুটো ঢাকা – কুমিল্লা (গৌরিপুর নেমে কচুয়া – চাঁদপুর) – বিশ্বরােড – ফেনী – চট্টগ্রাম।

ময়মনসিংহ বিভাগে প্রথম রুটে ঢাকা – টঙ্গী – গাজীপুর – ময়ময়সিংহ – নেত্রকোনা।
দ্বিতীয় রুটে ঢাকা – টঙ্গী – গাজীপুর – ময়ময়সিংহ সদর – জামালপুর – শেরপুর।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার উপাচার্য সহ সংশ্লিষ্ট সকলকের মিটিং এর পর শনিবার থেকে বিভাগীয় শহরে বাস শিক্ষার্থীদের বিভাগীয় শহরে পৌঁছে দিবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে চূড়ান্ত রুট ম্যাপ এখনও জানায়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামালের সাথে ফোনে যোগাযোগ করেও সাড়া পাওয়া যায় নি।