দেশ

শিক্ষকের পরিবারের উপর হামলা, সড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন

তাসলিমা আক্তার মিতু, কিশোরগঞ্জ ।।

 

কিশোরগঞ্জে শিক্ষকের পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিচারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

সোমবার (১৭জুলাই) বিকেলে চৌদ্দশত ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বোর্ড বাজারে ভৈরব-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসী ও নোহার সরকারি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক- শিক্ষার্থীরা এ মানববন্ধন করে।এসময় প্রায় ১ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসীরা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করে।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কিশোরগঞ্জের চৌদ্দশত ইউনিয়ন দরবারপুর পশ্চিমপাড়া কোনাবাড়ি এলাকার মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে মো. মোস্তাফিজুর রহমান মানিক (৫৫) ও তার পরিবারের উপর হামলা চালায় একই এলাকার মৃত আব্দুল হান্নানের ছেলে রেজাউল করিম রেনু (৬৫) ও তার পরিবারের লোকজনেরা।

মোস্তাফিজুর রহমান মানিক নোহার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।গত ১৪জুলাই শুক্রবার সকাল ৭টায় রেজাউল করিম রেনু,একই এলাকার মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে কামাল উদ্দিন, জসিম উদ্দিন, রেজাউল করিম রেনু মিয়ার ছেলে নিরব মিয়া,একই এলাকার মৃত আঃ হান্নানের ছেলে আবুল বাসার,আলী আকবরদের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রধান শিক্ষকের পরিবারের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।হামলার ঘটনায় বর্তমানে দুই মেয়ে ও দুই ছেলে সন্তানসহ মোস্তাফিজুর রহমান মানিক ও তার স্ত্রীর কিশোরগঞ্জ ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

 

এলাকাবাসী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,রেজাউল করিম রেনু মিয়া সরকারি চাকরি করতো।দুর্নীতির দায়ে দুদক কর্তৃক মামলায় অভিযুক্ত তিনি।এলাকাবাসী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন,সে খারাপ প্রকৃতির লোক।এলাকায় প্রভাব খাটিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষকে হয়রানি করা তার কাজ।আমরা এলাকাবাসী রেনুর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে বিচার চাই।শিক্ষকের পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় এলাকার বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে গেছে।

 

হামলার ঘটনায় কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় চৌদ্দশত ইউনিয়নের জালিয়াপাড়া এলাকার মৃত জনাব আলী ব্যাপারীর ছেলে মোহাম্মদ আলী বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

 

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শ্যামল মিয়া বলেন,চৌদ্দশত নোহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের অভিযোগ আমরা পেয়েছি।ইতোমধ্যে তদন্ত করা হয়েছে এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button