রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে কোন ধ্বংসাত্মক কার্যক্রম না করতে ডিএমপির আহ্বান

ডিএমপি নিউজ:

বিএনপি ও তাদের সমমনা দলগুলোর অবরোধের নামে নাশকতায় রাজধানীতে ৬৪টি গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে কোন ধ্বংসাত্মক কার্যক্রম না করতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে আহ্বান  জানানো হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকালে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ আহ্বান জানান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশনস) ড. খঃ মহিদ উদ্দিন বিপিএম-বার।

তিনি বলেন, ২৮ অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীতে যতগুলো বাসে অগ্নিকাণ্ড ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এদের মধ্যে কেউ যাত্রীবেশে গাড়িতে উঠে বা বাহির থেকে অগ্নিসংযোগ করেছে। এ ঘটনায় জনগণ ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কর্তৃক ১২ জনকে গ্রেফতরা করা হয়েছে। গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে বাসে আগুন দেওয়ায় ব্যবহৃত পেট্রোল, গান পাউডার, দেশলাই, তুলা ও পুরনো কাপড় ইত্যাদি জব্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় ৬৪টি মামলা রুজু হয়েছে।

ছবি: সংগৃহীত

তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে নাশকতাকারী ও অগ্নি সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে ডিএমপি। মহানগরবাসীর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে নাশকতাকারী ও অগ্নি সন্ত্রাসীদের ধরিয়ে দিতে পারলে নগদ ২০ হাজার টাকা অর্থ পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার। রাজধানীর সাধারণ জনগণ ডিএমপি কমিশনারেরে এ ডাকে সাড়া দিয়েছে। অবরোধ চলাকালে নাশকতার জন্য যে সকল অগ্নি সন্ত্রাসীদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের অনেককেই জনসাধারণের দেওয়া তথ্য ও সহযোগিতার মাধ্যমে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে তথ্যদিয়ে নাশকতাকারীকে গ্রেফতারে সহযোগিতা করার জন্য একজনকে অর্থ পুরস্কার প্রদান করেছেন ডিএমপি কমিশনার।

তিনি আরো বলেন, গত ২৯ অক্টোবর ভোর সাড়ে তিনটার দিকে ডেমরার পশ্চিম দেইল্লা পাকা রাস্তার ওপর পার্কিং করে রাখা অছিম পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। তাদের দেওয়া আগুনে পুড়ে নাঈম (২২) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ হয়েছেন রবিউল ইসলাম (২৫) নামে আরেক যুবক। তারা দুজনই অছিম পরিবহন বাসের হেলপার ছিলেন। এছাড়াও আগুন লাগিয়ে পালানোর সময় মোহাম্মদপুরে একজন দুষ্কৃতিকারী মারা যায়।

ছবি: সংগৃহীত

তিনি বলেন, রাজধানীতে রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে যদি কেউ নাশকতা করে, অগ্নিসংযোগ করে বা কাউকে পুড়িয়ে দেয় সেক্ষেত্রে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সেই সাথে সাধারণ জনগণ যাতে নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে তার জন্য সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ সময় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ; বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর