Home প্রধান খবর হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা

57
0
SHARE

হেফাজতে ইসলামের পুরো কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এই সংগঠনের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী রোববার (২৫ এপ্রিল) রাতে এক ভিডিও বার্তায় এই ঘোষণা দেন।

বাবুনগরী ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘প্রিয় দেশবাসী, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নেতৃবৃন্দ, তৌহিদী জনতা সবাইকে সালাম। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে বড় দ্বীনি এবং অরাজনৈতিক সংগঠন, ঈমান আকিদার সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটির কিছু গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের পরামর্শক্রমে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো। ইনশাল্লাহ আগামীতে আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে আবার হেফাজতে ইসলামের কার্যক্রম শুরু হবে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশে আগমনের বিরোধিতা করে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যসহ দেশের বিভিন্ন স্থাপনায় হামলা ও ভাঙচুর চালায়। বিভিন্ন স্থানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় তারা। হেফাজতের দাবি অনুযায়ী পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে তাদের ১৭ সমর্থক নিহত হয়।

এই ঘটনার কয়েকদিন পর ৩ এপ্রিল হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সেক্রেটারি মাওলানা মামুনুল হক নারীসহ নারায়ণগঞ্জের রয়্যাল রিসোর্টে জনগনের তোপের মুখে পড়েন। পরে তাকে রাতে সেখান থেকে ছিনিয়ে নেয় তার ভক্ত-সমর্থকরা। এরপর রিসোর্টসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

এসব ঘটনার পর সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী হেফাজতে ইসলামের বেশ কিছু শীর্ষস্থানীয় নেতা ও কর্মীদের গ্রেফতার করেছে।

এরপর ১৯ এপ্রিল মধ্যরাতে হেফাজতে ইসলামের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সাথে তার বাসভবনে সাক্ষাৎ করেন। সেখানে তারা অযৌক্তিকভাবে কাউকে হয়রানি ও ঢালাওভাবে গ্রেফতার না করার দাবি জানান। ধারনা করা হয় এই বৈঠকে হয়রানি ও গ্রেফতার আতঙ্ক এড়াতে সরকারের সাথে একটি সমঝোতা চালানোর চেষ্টা করেন হেফাজতে ইসলামের নেতারা।

ঐ বৈঠকের পর রোববার রাতে হঠাৎ করেই হেফাজতে ইসলামের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।