ব্যাংকের লকারে রাখা ১৮ লাখ টাকা খেল উইপোকায়

সময়ের চিত্র ডেস্ক:

তিল তিল করে জমানো টাকা যাতে সুরক্ষিত থাকে সেজন্য ব্যাংকের লকারে রেখে এসেছিলেন। ব্যাংকের লকারে মোট ১৮ লাখ টাকা গচ্ছিত রেখেছিলেন। ভেবে ছিলেন মেয়ের বিয়েতে সেই টাকা খরচ করবেন। কিন্তু সেই টাকা খেয়ে নিল উইপোকায়। ভারতের উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে এমনই ঘটনা ঘটেছে।

 

 

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, অলকা পাঠক নামে এক বাবা তার সারা জীবনের সঞ্চয় একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে রেখে এসেছিলেন গত ২০২২ সালের অক্টোবরে। টাকার সঙ্গে গয়নাও রেখেছিলেন লকারে।

 

যেহেতু এক বছর হয়ে গিয়েছিল, তাই ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী কেওয়াইসি আপডেট করাতে হত ওই প্রৌঢ়াকে। আর সেই কেওয়াইসি আপডেট করানোর জন্য প্রৌঢ়াকে ব্যাংক থেকে ডেকে পাঠানো হয়।

 

 

গতকাল সোমবার ব্যাংকে কেওয়াইসি জমা দিতে গিয়েছিলেন অলকা। কেওয়াইসি জমা দেওয়ার পর নিজের গচ্ছিত সম্পদ ঠিক আছে কি না তা দেখার জন্য লকার খোলেন। কিন্তু তখনই ঘটে লঙ্কা কাণ্ড! বান্ডিল বান্ডিল টাকা উধাও! লকারের ভেতর কিলবিল করছে উইপোকা। প্রৌঢ়ার তখন আর বুঝতে বাকি নেই যে তার সর্বনাশ হয়ে গেছে। আর সেই সর্বনাশের মূলে কে রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি বিষয়টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানান।

 

 

ভুক্তভোগী জানান, বড় মেয়ের বিয়ের সময় বেশ কিছু টাকা পেয়েছিলেন তিনি। এ ছাড়া ছোট একটা ব্যবসা চালান। সেখান থেকে অর্জিত টাকাও ছোট মেয়ের বিয়ের জন্য জমাচ্ছিলেন। মোট ১৮ লাখ টাকা নগদ জমিয়েছিলেন অলকা। তারপর সেই টাকা এবং কিছু গয়না গত অক্টোবরে ব্যাংকের 0 লকারে রেখে আসেন।

 

 

অলকার দাবি, লকারে যে টাকা রাখা যায় না, সেটা তিনি জানতেন না। ব্যাংক ম্যানেজার জানিয়েছেন, উচ্চ কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। তার রিপোর্টের ভিত্তিতেই পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

এই বিভাগের আরো খবর