বিদেশি প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনতে চালু হচ্ছে ডেবিট কার্ড: গভর্নর

এ আর এম মামুন।। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার বলেছেন, ব্যাংকিং খাতে ডিজিটাল মাধ্যমের ব্যবহার বাড়ছে। ব্যাংকগুলোকে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে লেনদেন করতে ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড সেবা দিচ্ছে।

এর মাধ্যমে তারা লভ্যাংশ হিসেবে প্রতিবছর দেশ থেকে প্রচুর পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের নিজস্ব ডেবিট কার্ড চালু হলে কার্ডভিত্তিক লেনদেনে বিদেশি প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভরতা কমে আসবে। নিজস্ব ডেবিট কার্ড চালু করতে আমরা খুব কাছাকাছি চলে এসেছি।

তিনি বলেন, বর্তমানে অধিকাংশ ব্যাংকেরই কোর ব্যাংকিং সল্যুশন সফটওয়্যার ব্যবহার করছে। এখন চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের দ্বারপ্রান্তে চলে আসায় ব্যাংকিং খাতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার বাড়বে। সেই সঙ্গে ব্যাংকিং খাতে নতুন যে ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে তার জন্য ব্যাংকগুলো আরো প্রস্ততি নিতে গুরুত্ব দিতে হবে।

বুধবার (২৪ মে) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ব্যাংকিং অন ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিট উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার এসব কথা বলেন। এসময় এবিবির চেযারম্যান এবং ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি ও সিইও সেলিম আর. এফ. হোসেন, এবিবির বোর্ড অব গভর্নরস এবং বিভিন্ন ব্যাংকের এমডি ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে ডিজিটাল আর্থিক সেবার প্রবৃদ্ধি অর্জনের মূল গতিধারাগুলো নিয়ে মূল্যবান পর্যবেক্ষণ প্রদানের জন্য ‘ব্যাংকিং অন ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিট ’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি)।

দেশের ৪৬টি বাণজ্যিক ব্যাংক থেকে ১৫০ জনের বেশি কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করছেন এই সামিটে।

দেশের ব্যাংকিং খাতের ডিজিটাল রূপান্তর যাত্রা নিয়ে আলোচনা করার লক্ষ্যে দুই দিনব্যাপী এই সামিটে উপলক্ষে এবিবি এবং পিডব্লিউসি যৌথভাবে ‘ব্যাংকিং ইভলুশন: ড্রিভেন বাই ডিজিটাল ট্রানফরমেশন’ শিরোনামের একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বাংলাদেশে ডিজিটাল রূপান্তরের জন্য গৃহীত কৌশলগুলি বিশ্লেষণ করত বিভিন্ন ব্যাংকের নির্বাহীদের নিয়ে একটি জরিপ স্থান পেয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর