নান্দাইলে গম কাঁটা ও মাড়াই শুরু, বাম্পার ফলনে খুশি কৃষক-কৃষাণী

শাহ্ আলম ভূঁইয়া,  ময়মনসিংহ:

 

ময়মনসিংহের নান্দাইলে গম কাঁটা ও মাড়াইয়ে শুরু হয়েছে। এরমধ্যে পুরোদমে গম কাটা ও মাড়াইয়ে কৃষক-কৃষাণীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন।

 

অনুকূল আবহাওয়া ও সঠিক সময়ে কৃষকরা জমিতে বীজ বপন করতে সক্ষম হওয়ায় এ বছর গমের বাম্পার ফলন হয়েছে। গমের ভাল ফলন ও দাম বেশি পেয়ে খুশি তারা।

 

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি রবি মৌসুমে নান্দাইলে ৫০ হেক্টর জমিতে কৃষক গম চাষ করেছেন। অধিকাংশ জমিতে কৃষক উচ্চ ফলনশীল জাত হিসেবে পরিচিত বারি-২৮,৩০, ৩২ ও ৩৩ রোপণ করেছেন। এছাড়া বারি-২৫ ও ২৭ জাতের গম চাষ করা হয়েছে।

অনুকূল আবহাওয়া এবং কৃষি বিভাগের সঠিক তদারকি ও পরামর্শে গম ক্ষেতে কোনো রোগবালাই ছিল না। তাই গমের বাম্পার ফলন হয়েছে।

 

উপজেলার বীরবেতাগৈর, চরবেতাগৈর,খারুয়া, আচারগাঁও, শেরপুর, নান্দাইল, সিংরইল, গাঙ্গাইল, জাহাঙ্গীরপুর, মুশুলি সহ অন্যান্য ইউনিয়নেও বিক্ষিপ্তভাবে গমের আবাদ হয়েছে। তবে উপজেলার চরাঞ্চলে গমের আবাদ বেশি হয়েছে।

 

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার সর্বত্রই গম কাটা এবং মাড়াইয়ে ব্যস্ত রয়েছেন কৃষক। রোজা রেখে সারাদিন গমক্ষেতে বা বাড়ির উঠানে মাড়াই মেশিনের মাধ্যমে গম মাড়াই করছেন তারা।কৃষক-কৃষাণী, বৃদ্ধ সবাই গম নিয়ে ব্যস্ত।

 

উপজেলার বীরকামট খালী গ্রামের গমচাষি, মাহতাব, ইলিয়াস কাঞ্চন,আ: মতিন, বাবুল, ইলিয়াস,ইদ্রিসসহ অনেকেই জানান,গমের বাজার ভালো থাকায় তারা লাভবান হবেন। বর্তমানে বাজারে গম ২ হাজার থেকে ২ হাজার ১শত টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ভালো ফলন ও দাম বেশি পেয়ে খুশি কৃষক পরিবার।

 

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান বলেন, চলতি মৌসুমে গমের বাম্পার ফলন হয়েছে। ভালো দাম পেয়ে খুশি কৃষক। এইবার গমে তেমন উল্লেখ্যযোগ্য কোন রোগ- বালাইয়ের আক্রমণ হয়নি।চলতি মৌসুমে হেক্টর প্রতি প্রায় ৩.৩ টন হারে ফলন পাওয়া যাবে বলে

আশা করা যাচ্ছে।

এই বিভাগের আরো খবর