Home তথ্যপ্রযুক্তি কমওয়ার্ডের ১০ম আয়োজনে ২৮টি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে গ্রামীণফোনের বিভিন্ন ক্যাম্পেইন

কমওয়ার্ডের ১০ম আয়োজনে ২৮টি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে গ্রামীণফোনের বিভিন্ন ক্যাম্পেইন

12
0
SHARE
Spread the love

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।। বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ফ্ল্যাগশিপ উদ্যোগ ‘কমওয়ার্ড’ -এর দশম আসরে গ্রামীণফোনের কমিউনিকেশন পার্টনাররা মোট ২৮টি অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। দেশের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের অসাধারণ মার্কেটিং ক্যাম্পেইনগুলোকে স্বীকৃতি প্রদান করা এই অ্যাওয়ার্ড আয়োজনের মূল লক্ষ্য। এ বছর এই অনুষ্ঠানটি কানস লায়ন্স ইন্টারন্যাশনাল ফেস্টিভাল অব ক্রিয়েটিভিটি এবং দ্য ডেইলি স্টারের সহযোগিতায় ভার্চুয়ালভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

গ্রামীণফোনের মিডিয়া এজেন্সি এশিয়াটিক মাইন্ডশেয়ার লিমিটেড অংশগ্রহণকারী বিভাগ সমূহে ১টি গোল্ড, ৬টি সিলভার এবং ৬টি ব্রোঞ্জসহ মোট ১৩টি অ্যাওয়ার্ড জিতেছে। টেলিকম প্রতিষ্ঠানটির ক্রিয়েটিভ এজেন্সি গ্রে অ্যাডভারটাইজিং তাদের দু’টি ক্যাম্পেইনের জন্য গোল্ড এবং অন্যান্য বিভাগে ২টি সিলভার এবং ৫টি ব্রোঞ্জ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। গ্রামীণফোনের ডিজিটাল এজেন্সি ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেড একটি গোল্ড অ্যাওয়ার্ডের পাশাপাশি অন্যান্য বিভাগে ৩টি সিলভার এবং ১টি ব্রোঞ্জ অ্যাওয়ার্ড জিতেছে। এছাড়া, প্রোডাকশন হাউজ হাফ স্টপ ডাউন ফিল্ম ক্যাটাগরিতে ব্রোঞ্জ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। প্রতিষ্ঠানগুলো ২৬টি বিভাগের মধ্যে ১৪টিতে ৪টি গোল্ড, ১১টি সিলভার এবং ১৩টি ব্রোঞ্জ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে।

এ অ্যাওয়ার্ড অর্জন নিয়ে গ্রামীণফোনের চিফ মার্কেটিং অফিসার সাজ্জাদ হাসিব বলেন, “গ্রাহকদের আস্থার ওপর ভিত্তি করেই গ্রামীণফোন ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। গ্রাহকদের প্রয়োজনকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে থাকি এবং সেভাবেই পণ্য ও সেবা প্রদানে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে, এ অ্যাওয়ার্ড অর্জনের মাধ্যমে আমাদের উপর গ্রাহকদের আস্থার বিষয়টি আবারও প্রতিফলিত হয়েছে এবং আমাদের প্রচেষ্টা স্বীকৃতি পেয়েছে। আমাদের পার্টনারদের সহযোগিতার জন্যই এ অর্জন সম্ভব হয়েছে।”

অন্য যেকোন বারের তুলনায় দশম কমওয়ার্ড ছিল বেশ আলাদা। ২০১৯ সালের ১মে থেকে এ বছরের ৩১মে পর্যন্ত কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারির প্রতিকূল সময়ে এর মনোনয়ন পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। বৈশ্বিক মহামারি সৃষ্ট বিধি-নিষেধ থাকা সত্ত্বেও চলতি বছর ২৬টি বিভাগের অধীনে ১১শ’র বেশি মনোনয়ন ছিল এবং প্রতি বিভাগের বিজয়ীদের ব্রোঞ্জ, সিলভার, গোল্ড ও গ্রাঁ পী এই ক্রমে পুরস্কৃত করা হয়। অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের আগে ‘মেটামরফোসিস অব ক্রিয়েটিভিটি’ প্রতিপাদ্যে ১০ম কমিউনিকেশন সামিট অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মার্কেটিং বিশেষজ্ঞসহ অনুষ্ঠানে ৫শ’ এর বেশি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরিফুল ইসলাম বলেন, “ব্র্যান্ড-বিল্ডিং ইকোসিস্টেম তৈরিতে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের একটি উল্লেখযোগ্য উদ্যোগ কমওয়ার্ড। প্ল্যাটফর্মটি প্রতি বছর সর্বাপেক্ষা সৃজনশীল এবং সবচেয়ে কমিউনিটির মধ্যে প্রভাব বিস্তার করেছে এমন কাজকে স্বীকৃতি প্রদান করে। কমওয়ার্ডের সূচনালগ্ন থেকেই গ্রামীণফোন সৃজনশীল, উদ্ভাবনী, উৎসাহব্যঞ্জক এমন সব কনটেন্ট তৈরি করে যাচ্ছে, যা গ্রামীণফোনের ব্র্যান্ড ইক্যুইটি এবং ব্যবসাকে সুস্পষ্টভাবে প্রভাবিত করেছে। আমাদের বিশ্বাস, বাংলাদেশের ব্র্যান্ডের যাত্রাকে পরবর্তী ধাপে উন্নীতকরণে এই বছরের বিজয়ীরা ইন্ডাস্ট্রি সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুপ্রাণিত করবে।”

গ্রামীণফোনের কমিউনিকেশন পার্টনার – এশিয়াটিক মাইন্ডশেয়ার লিমিটেড, গ্রে অ্যাডভারটাইজিং এবং ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেডের পাশাপাশি এই অভূতপূর্ব সফলতার জন্য বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে গ্রামীণফোন। দশম কমওয়ার্ডের অন্যান্য বিজয়ীদের তাদের অসামান্য অর্জনের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।