Home দেশের খবর ডিমলায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

ডিমলায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

9
0
SHARE

ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

 

গত দুই দিনে তিস্তা নদীর পানি বেড়ে বিপৎসীমা অতিক্রম করলেও এখন তা কমতে শুরু করেছে। ফলে নীলফামারীর ডিমলায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটছে।

 

আজ বুধবার দুপুরে দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজের ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার, যা স্বাভাবিকের (৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার) চেয়ে দশমিক ১০ সেন্টিমিটার নিচে। পানি উন্নয়ন বোর্ড ডালিয়া বিভাগের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

 

এর আগে গত সপ্তাহে পানির প্রবাহ কয়েক দফা বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৩০ সেন্টিমিটার অতিক্রম করেছিল। গত দুই দিন একটানা বিপৎসীমা অতিক্রম করার ফলে উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের প্রায় ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়ে। পানিবন্দী এসব পরিবারের কেউ কেউ বাঁধের ওপর মানবেতর জীবনযাপন করছেন। বর্তমানে তিস্তার পানির প্রবাহ বিপৎসীমার নিচে নেমে আসায় বন্যা পরিস্থিতিরও কিছুটা উন্নতি ঘটেছে। ঘর-বাড়ি থেকে নেমে যেতে শুরু করেছে বন্যার পানি।

 

এদিকে বন্যাকবলিত পরিবারগুলোর মধ্যে সরকারিভাবে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। খালিশা চাপানি ইউনিয়নের স্থানীয়রা জানান, বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও এখনো অনেক পরিবার পানিবন্দী অবস্থায় পড়ে আছে। মানুষের দুর্ভোগ বেড়ে গেছে। নিম্ন আয়ের লোকজনের কাজ না থাকায় তারা বিপাকে পড়েছে। গোখাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে।

 

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আসফাউদদৌলা বলেন, মঙ্গলবার রাত থেকে কমতে শুরু করে তিস্তার পানির প্রবাহ। বুধবার সকাল ৬টায় বিপৎসীমার ৫ সেন্টিমিটার ও দুপুর ১২টায় আরও কমে গিয়ে বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার নিচে তিস্তার পানির প্রবাহ রেকর্ড করা হয়।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন,‘পানিবন্দী পরিবারগুলোর মধ্যে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। প্রতিমুহূর্তে বন্যা পরিস্থিতির খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’

image_print