চিতলমারীতে যৌতুক লোভী স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

 চিতলমারী(বাগেরহাট) প্রতিনিধি:

বাগেরহাটের চিতলমারীতে যৌতুক লোভী স্বামীর বিরুদ্ধে রোজিনা বেগম হেনা নামের এক মহিলা সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। হেনা চিতলমারী উপজেলার আড়–য়াবর্নী চর পাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিন শেখের স্ত্রী। নিজাম উদ্দিন শেখ চিতলমারী সরকারি বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজের এম,এল,এস,এস পদে চাকুরী করেন। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায়, উপজেলা প্রেসক্লাব চিতলমারী এর কার্যালয়ে হেনা স্বামীর বিরুদ্ধে এই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

তিনি বলেন, বিগত ২২/১০/১৯৯২ সালে উপজেলার আড়–য়াবর্নী চর পাড়া গ্রামের মৃতঃ আঃ মোতালেবের ছেলে নিজাম উদ্দিনের সাথে আমার বিয়ে হয়। কিছু দিন যেতে না যেতে সে যৌতুকের টাকার চাপ দেন আমাকে। আমি টাকা দিতে না পারায় সে আমাকে মারধর করে তাড়িয়ে দেন। আমি আদালতের শরণাপন্ন হয়ে একটি মামলা করি। (মামলা নং-১৩২/১৭)। এই মামলায় তার সাজা হয়। পরবত্তীতে আমার সাথে মীমাংসার কথা বলে জামিনে মুক্তি পান।

মুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে দ্বিতীয় বিয়ে করলে, পুণরায় আমি নারী ও শিশু বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করি।(মামলা নং-৯০/১৮) ও সিআর ৩৯/১৮ তে আমার স্বামীর ৩ মাসের বিনা শ্রম সাজা হয়। পরে আপীল ৮০/২০২০ নং মামলায় আদালতের শর্ত সাপেক্ষে আমার সাথে ১২/০৫/২০২২তারিখ মিট মীমাংসা হয় যে, তিনি চাকুরিরত প্রতিষ্ঠান থেকে বেতনের অর্ধেক টাকা আমাকে দিবেন।

শর্ত মোতাবেক ২০২৩ সালের জানুয়ারী মাস থেকে সেপ্টেম্বর পর্যান্ত কলেজ অধ্যক্ষ মোঃ বাবুল মিয়ার জ্ঞাতার্থে প্রতি মাসে টাকা দিয়েছেন। এ অবস্থায় কলেজটিতে সরকারি বেতন আসার পর থেকে আমার স্বামী তার পুর্বের রুপ ধারন করেছেন। তিনি বলেন এই বেতনের টাকা পেতে হলে আমাকে ৫ লক্ষ টাকা দিতে হবে। অন্যথায় তোকে নিয়ে আর সংসার করবো না।

বর্তমানে আমি ৩টি সন্তান নিয়ে মানবেতর জীবণ যাপন করছি। এব্যপার আমি যাতে সন্তানদের নিয়ে সুষ্ঠ ভাবে জীবণ যাপন করতে পারি সে ব্যপারে সংসিøষ্ঠ কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সময়ের চিএ/ ইস
এই বিভাগের আরো খবর