বিদেশ

গাজায় ৫ ঘণ্টার ‘মানবিক’ যুদ্ধবিরতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: 
ইসরায়েলের ভূখণ্ডে নজিরবিহীন ও তীব্র হামলা চালিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। হামলার প্রত্যুত্তরে ইতোমধ্যে গাজা উপত্যকায় পাল্টা হামলা ও অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে ইসরায়েল। এমন অবস্থায় সোমবার ৫ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করা হয়েছে। সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস অব ইসরায়েল এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে (বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টা) যুদ্ধবিরতি শুরু হবে। এই সময় গাজার সঙ্গে মিশরের রাফাহ সীমান্ত ক্রসিং খুলে দেয়া হবে। যুদ্ধবিরতির সময়ে মিশর সীমান্ত দিয়ে গাজায় থাকা বিদেশিরা বের হতে পারবেন এবং গাজায় মানবিক সাহায্য পৌঁছানো যাবে।

টানা দশ দিন সেখানে অবিরাম আগ্রাসন চালাচ্ছে ইসরায়েল। এতে ধসে পড়েছে শত শত বাড়ি ও ভবন। ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়ে আছে অনেকে। হাসপাতালে লাশের সারি। নিরাপদ আশ্রয়ের’ খোঁজে দিগ্‌বিদিক ছুটছে লাখ লাখ মানুষ। চিকিৎসাসামগ্রীর তীব্র সংকট। বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ, ফুরিয়ে আসছে খাবার। ২২ লাখ মানুষের নগরী ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় এখন এই পরিস্থিতি।

এদিকে, ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা ভূখণ্ডের হাসপাতালগুলোতে মাত্র ২৪ ঘণ্টার জ্বালানি অবশিষ্ট রয়েছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ। এতে করে ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে হাজার হাজার রোগীর জীবন। সোমবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গাজার হাসপাতালগুলোতে যে পরিমাণ জ্বালানির মজুদ রয়েছে তাতে আর মাত্র ২৪ ঘণ্টা কাজ চলতে পারে বলে জাতিসংঘ সতর্ক করেছে। জাতিসংঘের মানবিক কার্যালয় তার ওয়েবসাইটে বলেছে, জ্বালানি ফুরিয়ে যাওয়ার ফলে ব্যাকআপ জেনারেটর বন্ধ হয়ে গেলে গাজার হাজার হাজার রোগীর জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়বে।

এর মধ্যে গাজায় ইসরায়েলি গোলাবর্ষণ ও বিমান হামলায় অন্তত দুই হাজার ৪৫০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে আল জাজিরা। প্রতিবেদনে বলা হয়, গাজায় আহতের সংখ্যা নয় হাজার ২০০ ছুঁয়েছে।

অপরদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় জানিয়েছে, হামাসের হামলায় দেশটিতে এক হাজার ৪০০ জনের বেশি নিহত হয়েছে। একইসঙ্গে ১২০ জনের বেশি ইসরায়েলি নাগরিক হামাসের হাতে জিম্মি রয়েছে বলে দাবি করেছে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখপাত্র টাল হাইনরিক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button