Home খেলার খবর আবারও হোয়াটওয়াশ বাংলাদেশ

আবারও হোয়াটওয়াশ বাংলাদেশ

16
0
SHARE
ওয়ানডে সিরিজে তামিম ইকবালের নেতৃত্বে হোয়াইটওয়াশ। ব্যক্তিগত কারণে টি-টোয়েন্টি সিরিজ না খেলেই দেশে ফেরেন তামিম। টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগেই ছিটকে যান মুশফিকুর রহীম। বৃহস্পতিবার হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর লড়াইয়ের আগে ইনজুরির কারণে বাদ পড়েন অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহ। নেতৃত্ব পান লিটন দাস। বৃষ্টির কারণে ১০ ওভারে নেমে আসা তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতেও ছন্নছাড়া বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের দেয়া ১৪২ রানের বড় লক্ষ্য তাড়ায় নেমে পুরো ১০ ওভারও টেকেনি বাংলাদেশের ইনিংস। ৩ বল আগে ৭৬ রানে অলআউট বাংলাদেশ। ৬৫ রানে হেরে ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ধবলধোলাইয়ের তেতো স্বাদ পেলো বাংলাদেশ দল। নিউজিল্যান্ডে তাদের বিপক্ষে খেলা ৩২ ম্যাচের সবকটিতেই হারলো বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার অকল্যান্ডের এডেন পার্কে ১৪২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা বাংলাদেশকে করতে হতো ওভারপ্রতি ১৪ রানেরও বেশি। বড় রানের চাপে শুরুতেই এলোমেলো বাংলাদেশের ব্যাটিং। আগের ম্যাচে ঝোড়ো ফিফটি হাঁকানো সৌম্য সরকারের ব্যাটে ধারাবাহিকতা নেই। ৪ বলে ১০ রানে ফেরেন তিনি। প্রথমবারের মতো জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেয়ার ম্যাচে লিটন দাস ফিরেছেন ‘গোল্ডেন ডাক’ মেরে। তিনে নামা লিটন ফিরেছেন টিম সাউদির বলে বোল্ড হয়ে। ওপেনার নাঈম শেখ ১৩ বলে ১৯ রানে ফেরার সময় বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে রান তখন ৩১/৩। সফরে প্রথমবার সুযোগ পাওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত নেমেছিলেন চারে। নিজেকে প্রমাণে আরো একবার ব্যর্থ তিনি। ৬ বলে ৮ রানে ফেরেন টড অ্যাস্টলের লেগস্পিনে বোল্ড হয়ে। সিরিজে কিছুটা ধারাবাহিক রান করা আফিফ হোসেন ৬ বলে ৮ রানে অ্যাস্টলের বলে স্ট্যাম্পড হন। সফরে প্রথমবার সুযোগ পাওয়া আরেক ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেনও ব্যর্থ (৮ বলে ১৩)। অলরাউন্ডার শেখ মেহেদী ও বাকি চার টেলএন্ডার দুই অঙ্ক ছুঁতে ব্যর্থ। ২ ওভারে ১৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে কিউইদের সেরা বোলার টড অ্যাস্টল।

সকাল থেকেই বৃষ্টি হচ্ছিল অকল্যান্ডের এডেন পার্কে। বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টায় ম্যাচ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও টস করতে প্রায় দুটো বেজে যায়। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই টাইগার বোলারদের উপর আধিপত্য বিস্তার করে কিউইরা। চার-ছক্কার ফুলঝুরিতে ফিন অ্যালেনের সঙ্গে ৮৫ রানের জুটি গড়েন মার্টিন গাপটিল। গাপটিল ১৯ বলে ৪৪ রান করে মেহেদী হাসানের উইকেটে পরিণত হলে ভাঙ্গে জুটি।

এরপর গ্লেন ফিলিপসকে সঙ্গে নিয়ে ২৯ বলে ৭১ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন অ্যালেন। ১০ চার ও ৩ ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান এই কিউই ওপেনার। ফিলিপস ১৪ রান ও ডেরিল মিচেল ১১ রান করেন। বাংলাদেশের পক্ষে একটি করে উইকেট পান তাসকিন আহমেদ, শরীফুল ইসলাম ও শেখ মেহেদী।