ক্ষমতা ছিলো ক্যান্টনমেন্টে,সেটা জনগণের হাতে এনে দিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী

সময়ের চিত্র ডেস্ক:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করতে যা যা করার আমরা তাই করেছি। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে আওয়ামী লীগ সবকিছু করেছে। কমিশন বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রধান কে হবে সেটা আমরা আইন করেছি। যে ক্ষমতা একসময়ে ক্যান্টনমেন্টের ভেতরে ছিলো, সেটা আমরা জনগণের হাতে এনে দিয়েছি।

বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) সকালে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভার শুরুতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

এদিন সকাল ১০টা ১০ মিনিটে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের তেজগাঁও কার্যালয়ে সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের এ সভা শুরু হয়। সভায় সভাপতিত্ব করছেন মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছে। ভোটে স্বচ্ছতা রক্ষায় ছবিসহ ভোটার তালিকা করেছে। অথচ ভোট চুরির অপরাধে খালেদা জিয়াকে ১৯৯৬ সালের ৩০ শে মার্চ পদত্যাগ করতে হয়েছিলো।
তিনি বলেন, একসময় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে থাকা নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করতে আওয়ামী লীগ সরকার আইন করে দিয়েছে। যে নির্বাচন কমিশনের অধীনে এখন দেশে নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সংগ্রাম করে গেছে। আর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে গিয়েই আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী জীবন দিয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতাকে হত্যার পরে দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার এবং ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করেই সংবিধান স্থগিত করে মার্শাল ল জারি করে। সেসময়ে হ্যাঁ-না ভোটের ‘না’ বাক্স খুঁজেই পাওয়া যায়নি।

এই বিভাগের আরো খবর