Home আইন আদালত অফিসের দরজা-জানালা খুলে জনগণকে চেহারা দেখান

অফিসের দরজা-জানালা খুলে জনগণকে চেহারা দেখান

176
0
SHARE
 নিজস্ব প্রতিবেদক।।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলামকে উদ্দেশ করে হাইকোর্ট বলেছেন, আপনাকে সতর্ক করছি। এখন থেকে ডিসি অফিসের দরজা-জানালা খোলা রাখবেন, যেন জনগণ আপনাদের চেহারা দেখতে পায়। আপনারা দরজা-জানালায় ভারী পর্দা ব্যবহার করবেন না।

আদালত অবমাননার মামলায় রবিবার (২২ আগস্ট) ডিসিকে এসব কথা বলেন হাইকোর্ট। বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি কে এম রবিউল হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই সতর্কতা দেন।

আদালত বলেন, আমাদের অভিজ্ঞতা বলে আপনারা কী ধরনের জীবনযাপনে অভ্যস্ত। চাকচিক্যময় জীবনযাপন করেন। কীভাবে ক্ষমতার প্রয়োগ করেন। সেটাও জানি। দুঃখজনক হলেও সত্য ডিসি অফিসে সাধারণ মানুষ প্রবেশ করতে পারে না। সাধারণ মানুষ তাদের সমস্যাগুলো নিয়ে কথা বলার সুযোগ পায় না। আপনাদের অফিসের দরজা জানালা মোটা পর্দায় আবৃত থাকে। যার কারণে মানুষ আপনাদের ছবি পর্যন্ত দেখতে পায় না।

উচ্চ আদালত বলেন, ডিসি হলো সরকারের হার্ট। আপনাকে জনগণের জন্য সেভাবে কাজ করতে হবে।

হাইকোর্ট বলেন, ডিসি অফিসে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার নেই। আপনারা একটা দরখাস্ত পর্যন্ত রিসিভ করেন না। এখন থেকে কোনো ধরনের উন্মাসিকতা দেখাবেন না। নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভালো কাজ করলে দেশ ও জনগণ উপকৃত হবে।

আদালত আরও বলে, কোথাও চুরি ডাকাতি হচ্ছে, সরকারি সম্পত্তি দখল হয়ে যাচ্ছে, অভিযোগ না পেলে কী আপনি বসে থাকবেন! বসে থাকার সুযোগ নেই।

এরপর হাইকোর্ট ডিসিকে আদালত অবমাননার মামলায় ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি দিয়ে এ সংক্রান্ত রুলের শুনানির জন্য ২৪ অক্টোবর দিন ধার্য করে।

আদেশে বলা হয়েছে, ওই দিন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি), ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি ও নিলাম করা সম্পত্তি গ্রহণকারী ব্যবসায়ীকে আদালতে হাজির থাকতে হবে। তবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কুষ্টিয়ার সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খানকে ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

আদালতে ডিসি ও এসপির পক্ষে আইনজীবী মুন্সী মনিরুজ্জামান ও ইউসুফ খান এবং এমডির পক্ষে সৈয়দ মিনহাজুল হক ও ব্যবসায়ী শফিকুলের পক্ষে রাগীব রউফ চৌধুরী শুনানি করেন।

প্রসঙ্গত গত ১১ আগস্ট আদালতের স্থগিতাদেশ থাকার পরও ১২৩ কোটি টাকার সম্পত্তি ১৫ কোটি টাকায় নিলামে বিক্রি করার ঘটনায় ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আর এফ হোসাইন, কুষ্টিয়ার ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, এসপি মো. খায়রুল আলম, সদর থানার ওসি মো. সাব্বিরুল আলম ও নিলামে সম্পত্তি নেওয়া ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদকে তলব করেন উচ্চ আদালত।

image_print